Home / প্রযুক্তি জীবন / ব্যাপক পারফরমেন্স নিয়ে আসছে এলজি ভি২০ স্মার্টফোন

ব্যাপক পারফরমেন্স নিয়ে আসছে এলজি ভি২০ স্মার্টফোন

স্মার্টফোনের ব্যাটারির প্রধান হুমকি ফেসবুক

সময়টা ভালো যাচ্ছে না এলজি স্মার্টপোনের। যখন এলজি জি৫ বাজার আসে, তখন সব প্রতিযোগীর গলা শুকিয়ে গিয়েছিল।
কারণ অ্যাডভান্সড টেকনলজি কম্পানিটি বরাবরই নতুন চমক আনে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে দারুণ স্পেসিফিকেশনের ফোনটি ব্যর্থতা দেখেছে। কিছু প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দেয়। কিন্তু ঘুরে দাঁড়াতে কতক্ষণ। এবার সর্বসাম্প্রতিক ভি-সিরিজ স্মার্টফোন ভি২০ নিয়ে বাজি ধরেছে কোরিয়ান টেক জায়ান্ট।

এর আগে ভি১০ স্মার্টফোন দিয়ে আলোড়ন তুলেছিল এলজি। গত বছর বের হলেও কখনো ভারতীয় বা আশপাশের বাজার আসেনি। কিন্তু এবার এশিয়ার এই অংশের বাজার দখল দেবে তারা।

ভারতের এলজি ইন্ডিয়ার মার্কেটিং বিভাগের প্রধান অমিত গুজরাল জানান, ভি১০ ছাড়ার জন্য গতবার প্রস্তুত ছিল না বাজার। এলজি২০ এর দাম ধরা হয়েছে ভারতের বাজারে ৫৪৯৯৯ রুপি। এর স্পেসিফিকেশন সাধারণত অতি উচ্চ ক্ষমতাশালী স্মার্টফোনে দেওয়া হয়। এটা সরাসরি গুগল পিক্সেল এক্সএল, জেনফোন ৩ ডিলাক্স এবং স্যামসাং গ্যালিক্সি এস৭ এজ এর প্রতিযোগী হবে। এলজি’র খুচরা দোকান ও আমাজনে পাওয়া যাবে ফোনটি।

এর আগে এলজি’র যেকোনো হ্যান্ডসেটের ডিজাইনকে টেক্কা দেবে ভি২০। সামনের প্যানেলে রয়েছে ডুয়াল ডিসপ্লে। একটি মূল স্ক্রিন। অন্যটি টিকার ডিসপ্লে। ওপর, নিচ এবং ক্যামেরা সেন্সরগুলো কাচে মোড়ানো। একে একটা ঝকঝকে ক্রিস্টালের টুকরা বলেই মনে হয়। ক্যামেরায় অটোফোকাসের সঙ্গে রয়েছে ডুয়াল-টোন এলইডি ফ্ল্যাশ। এর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর রয়েছে নিচের দিকে। এর ব্যাটারি বদলানো যাবে।

এই ফোনটিকে ৫-৬ ফুট ওপর থেকে ফেলতে বলা হয়েছে। কোথাও কিছুই হবে না। দুটো সিম কার্ড রাখার ব্যবস্থা রয়েছে। একটি ভেতরে ব্যাটারির ঠিক ওপরেই। ন্যানো সিম ব্যবহার করতে হবে।

এর পর্দাটি ৫.৭ ইঞ্চির কিউএইচডি কোয়ান্টাম এলসিডি প্রযুক্তির। তুলনামূলকভাবে পর্দাটি পছন্দ হবে না। স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৭ এজ এর ডিসপ্লেতে রংয়ের বর্ণিল ছটা দেখা যায়। সাধারণত অ্যামোলেড ডিসপ্লেতে এমনটাই হয়। তবে আরামদায়ক পর্দা অবশ্যই পাবেন। কম, মধ্যম এবং উচ্চ আলোতে চমৎকার দেখা যাবে।

এর ২.১ ইঞ্চির দ্বিতীয় পর্দায় রয়েছে ১৬০x১০৪০ পিক্সেলের রেজ্যুলেশন। এখানে বিভিন্ন অ্যাপের শর্টকাট থাকবে। এখান থেকে মিউজক এবং নোটিফিকেশন দেখা যাবে।

কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮২০ প্রসেসর দেওয়া হয়েছে। এর পারফরমেন্স একে বাজারের সেরা ফোনগুলোর একটিতে পরিণত করেছে। বড় ও ভারী অ্যাপগুলো খুব মসৃণভাবে চলে। প্রসেসরকে গতি দেবে ৪ জিবি র‍্যাম। যদিও ৬ জিবি র‍্যাম নিয়ে বাজারে আসছে অনেক ফোন। কিন্তু এর প্রয়োজন নেই। এর র‍্যাম দরকার হয় না এবং তার ব্যবহারও ঘটে না। আন্দ্রিনো ৫৩০ জিপিইউ দারুণ গ্রাফিক দেবে। পেছনের ক্যামেরাটি ১৬ মেগাপিক্সেলের এবং ব্যাটারি ৩২০০এমএএইচ শক্তির। সামনের ক্যামেরাটি ৮ মেগাপিক্সেলের। উভয় ক্যামেরাতে কম আলোয় চলমান বস্তুর অনেক ভালো ছবি তোলা যায়। সামনের ক্যামেরাটি ১৩৫ ডিগ্রি কোণের ছবি তুলতে সক্ষম। এই ব্যাটারি কম মনে হয়। গড় ব্যবহারে পুরোপুরি একদিন চলতে পারে না। এটাই প্রথম স্মার্টফোন যা গুগলের পিক্সেলের পর সরাসরি অ্যান্ড্রয়েড নুগেট ৭.০ নিয়ে আসছে।

তবে অনেক বিশেষজ্ঞের কাছে এই ফোনটি কোনো ফ্ল্যাগশিপ বা প্রিমিয়াম ফোনের আমেজ দিতে পারেনি। তবে পুরোদমে উৎপাদন ও মার্কেটিং শুরু হলে এর দাম অনেকটা কমে আসতে পারে। সূত্র: গেজেট স্নো

গুগল চশমার নবজন্মের পেছনে ঢাকার কোম্পানি

Loading...

Check Also

স্মার্টফোনের ব্যাটারির প্রধান হুমকি ফেসবুক

গুগল চশমার নবজন্মের পেছনে ঢাকার কোম্পানি ইনস্টল থাকা বিভিন্ন অ্যাপের কারণেই স্মার্টফোনের চার্জ থাকে না …

গুগল চশমার নবজন্মের পেছনে ঢাকার কোম্পানি

ফোনে চুমু দেয়ার যন্ত্র, বাস্তবের অনুভূতি রোগীর দিকে তাকিয়ে তাকে জিজ্ঞেস না করেই চিকিৎসক জেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *