Home / রাজনীতি / লিফলেট এগিয়ে দিয়ে আইভীর কাছে ধানের শীষে ভোট চাইলেন আফরোজা

লিফলেট এগিয়ে দিয়ে আইভীর কাছে ধানের শীষে ভোট চাইলেন আফরোজা

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিজ দলের স্থানীয় নেতাদের এখনো মাঠে নামাতে পারেননি আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী ও বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। তবে স্থানীয় নেতারা মাঠে না থাকলেও দুই দলের কেন্দ্রীয় নেতারা নিজ নিজ প্রার্থীর পক্ষে নারায়ণগঞ্জে গিয়ে গণসংযোগ ও প্রচার চালাচ্ছেন।
সিটি করপোরেশনে এবারই প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হচ্ছে। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া থেকে শুরু করে সবকিছুই চলছে দলীয় ভিত্তিতে। এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার দলীয় প্রার্থী সাখাওয়াতের পক্ষে প্রচারণার সময় অংশ নেন মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস।

কিন্তু ঘটনাচক্রে এদিন বিকালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সঙ্গে সাক্ষাৎ হয় আফরোজা আব্বাসের। এ সময় আইভীর কাছে ধানের শীষে ভোট চান তিনি। একই সঙ্গে আইভীও উল্টো আফরোজা আব্বাসের কাছে নৌকা প্রতীকে ভোট চান।

জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে অংশ নিতে কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে নারায়ণগঞ্জে যান আফরোজা আব্বাস। বিকালে গণসংযোগকালে আইভীর সঙ্গে দেখা হয়ে যায় তার। আইভী এসময় গাড়িতে থাকলেও আফরোজা আব্বাস এগিয়ে গেলে তিনি গাড়ির গ্লাস নামিয়ে কুশল বিনিময় করেন। তখন ধানের শীষ প্রতীকে ভোট চেয়ে আইভীর দিকে লিফলেট এগিয়ে দেন আফরোজা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আফরোজা আব্বাসের তাক লাগিয়ে দেয়া এমন আচরণে প্রথমে আইভী কিছুটা অপ্রস্তুত ছিলেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিজেকে সামলে নিয়ে উল্টো নৌকা প্রতীকে ভোট চান এবং আফরোজাকেও নৌকার পক্ষে প্রচার চালাতে অনুরোধ করেন। এ সময় হাসিমুখে দুজনের মধ্যে হালকা কথাবার্তাও হয়।

গত বছর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন মির্জা আব্বাস। তবে তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকায় তিনি নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিতে পারেননি। পুরো সময় নির্বাচনী প্রচারে ছিলেন তার সহধর্মীনি আফরোজা আব্বাস। এ সময় তিনি নগরীতে গণসংযোগে দলমত নির্বিশেষে সবার কাছে ছুটে গিয়ে তাক লাগিয়েছিলেন।

এমনকি মির্জা আব্বাসের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী (বর্তমান মেয়র) সাঈদ খোকনের পুরান ঢাকার বাসায় পর্যন্ত ভোট চাইতে ছুটে গিয়েছিলেন আফরোজা। সংঘাতপূর্ণ রাজনৈতিক কালচারের মধ্যে তার এই সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণকে সবাই ইতিবাচক হিসেবে দেখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *